লোভে পাপ, পাপে মৃত্যু ভাবসম্প্রসারণ

লোভে পাপ, পাপে মৃত্যু ভাবসম্প্রসারণ lovepaap pape mittu vabsamprasaron

 

লোভে পাপ, পাপে মৃত্যু

পার্থিব জগতে কোনো কিছু অর্জনের জন্য মানুষের মধ্যে যে, দুর্দমনীয় বাসনার সৃষ্টি হয় তার নামই লোভ। লোভ মানব জীবনের সবচেয়ে ক্ষতিকর এক রিপু। মানুষ লোভের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে বাহ্যিক জ্ঞান শূন্য হয়ে পড়ে। তখন ভাল-মন্দের বিচার-বিবেচনা জ্ঞান থাকে না। মানুষের মতো মনুষ্যত্ববোধ অন্য পশু পাখির মধ্যে নেই। লোভ মানুষের সেই মনুষ্যত্বকে বিনষ্ট করে দেয়। আর মনুষ্যত্বহীন মানুষের পশুর মতো বিচার, বুদ্ধি, বিবেক লোপ পায়।

লোভ এমনই এক তাড়না যা মানুষকে পশুতে রূপান্তরিত করে। লোভের কারণে মানুষ পাপ পুণ্যের কথা পর্যন্ত ভুলে যায়। তাই সে কিছুই বুঝে উঠতে পারে না। ধীরে ধীরে সে ধ্বংসের পথে, পাপের পথে এগিয়ে যায়। লোভী ব্যক্তি যে শুধু নিজের ক্ষতি করে তাই নয়। সে নিজের সাথে সাথে সমাজেরও ক্ষতি করে। অপরদিকে লোভহীন মানুষ পাপ থেকে দূরে থাকে। স্বাভাবিক ও সুন্দর জীবনযাপন করে। লোভী মানুষের পক্ষে কখনই এমন নির্মল সুন্দর জীবন পাওয়া সম্ভব হয় না।

লোভের তাড়নায় মানুষ গর্হিত কাজে লিপ্ত হয়। এসকল নীতি বিবর্জিত কাজ পাপ কাজ বলে বিবেচিত হয়। এর ফলে সৃষ্টিকর্তা মানুষের প্রতি চরম অসন্তুষ্ট হন। আর এই নীতি বিবর্জিত পাপ কাজের কারনে মানুষের মানবিকতার আত্মিক মৃত্যু ঘটে।

শিক্ষা: লোভ মানুষের স্বাভাবিক ও নির্মল জীবন-যাপনের পথে বড় অন্তরায়। লোভে পড়ে মানুষ সর্বনাশের দিকে এগিয়ে যায় এবং ধ্বংস ও মৃত্যুর মধ্য দিয়ে তার জীবনের অবসান ঘটে। এককথায় লোভই মানুষের সকল অপরাধের উৎস।


কোন মন্তব্য নেই

Be alert before spamming comments.

Blogger দ্বারা পরিচালিত.