যতক্ষন শ্বাস, ততক্ষন আঁশ ভাবসম্প্রসারণ

যতক্ষন শ্বাস, ততক্ষন আঁশ ভাবসম্প্রসারণ jotokkhon shas totokkhon aash vabsomprasaron


যতক্ষন শ্বাস, ততক্ষন আঁশ

মানুষের চলার পথ মসৃণ নয়। প্রতিটি পদক্ষেপ নানা বাধা-বিপত্তিতে ভরা। চাওয়ার সাথে পাওয়ার মধ্যে বিস্তর ফারাক। প্রতিনিয়ত প্রতিকূল পরিবেশের সাথে যুদ্ধ করতে হয়। তবুও মানুষ স্বপ্ন দেখে আশায় বুক বাঁধে। অসংখ্য তরঙ্গ যেমন সাগরকে বিক্ষুদ্ধ করে, তেমনি দুঃখ-কষ্ট সংসার জীবনে মানুষকে করে তোলে হতাশ বিপর্যস্ত।

ভেলা ভাসিয়ে মানুষ যেমন উত্তাল সমুদ্র পাড়ি দেয় তেমনি আশার তরীতে ভেসে মানুষ সংসারের সাগরকে অতিক্রম করে। উত্তাল সাগরে মানুষের অবলম্বন হয় ভেলা আর সংসারে মানুষের অবলম্বন হয় আশা বা স্বপ্ন। সমস্যা এবং দুঃখ স্থায়ী নয়। আজকের দিনের সমস্যা এবং দুঃখ একদিন না একদিন শেষ হবে।

অন্ধকার কালো রাতের পর নতুন ভোর আসবে। দুঃখের দিনের একদিন অবসান ঘটবে, এই আশাতেই মানুষ সকল দুঃখ কষ্টকে অতিক্রম করে। আশা না থাকলে কোনো মানুষ বাচঁতে পারতো না এক মুহুর্তের জন্যেও। যেদিন মানুষ স্বপ্ন দেখা ভুলে যাবে, সেদিনই তার কাছে বেঁচে থাকা মূলহীন হয়ে পড়বে। এই জগতের কোনো কিছুই আর তাকে আকর্ষণ করবে না। আশা বা স্বপ্ন মানুষকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যায়। সাফল্যের পথে প্রেরণা যোগায় প্রতিটি ক্ষণে। ভবিষ্যতের আশা বা স্বপ্ন প্রেরণা যোগায় বলেই, বর্তমানকে আমরা মেনে নিতে পারি।

শিক্ষা: আশা বা স্বপ্ন আছে বলেই, নতুন নতুন উদ্ভাবন এবং মানুষের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে পৃথিবী আজকের অবস্থানে দাঁড়িয়ে আছে। নতুন ভোর আসবে এই বিশ্বাস আছে বলেই, মানুষ অত্যন্ত সহজভাবে জীবনকে গ্রহণ করেছে এবং এগিয়ে যাচ্ছে একেকটি নতুন স্বপ্নের দিকে।


কোন মন্তব্য নেই

Be alert before spamming comments.

Blogger দ্বারা পরিচালিত.