৩৩ আয়াতের আমল ও ফজিলত

৩৩ আয়াতের আমল ও ফজিলত


* ৩৩ আয়াত পরিচিতি :

এ আমল ‘৩৩ আয়াতের আমল’ নামে অনেকের মুখে পরিচিত। এ নামকরণের কারণ হচ্ছে, শাহ ওয়ালি উল্লাহ দেহলবী রহ. এর বংশে এ আমল ৩৩ আয়াতের আমল নামে প্রচলিত ছিল। তবে সুস্পষ্ট যে, আয়াত সংখ্যার ব্যাপারে প্রচলিত মানযিলের সাথে এর গড়মিল রয়েছে। কারণ, প্রচলিত মানযিলের আয়াত সংখ্যা ৭৯ টি।



শাহ ওয়ালি উল্লাহ দেহলভী রহ. তার পিতার কথা উল্লেখ করে লিখেছেন,

وسمعته (يريد والده) يقول: ثلاث وثلاثون آية تنفع من السحر، وتكون حرزا من اللصوص والسباع، أربع آيات من أول البقرة، وآية الكرسي وآيتان بعدها إلى خالدون، وثلاث من آخر البقرة، وثلاث من الأعراف {إن ربكم الله} إلى {المحسنين}، وآخر بني إسرائيل {قل ادعو الله أو ادعو الرحمن}، وعشر آيات من أول الصافات إلى {لازب}، وآيتان من سورة الرحمن {يا معشر الجن} إلى {تنتصران}، وآخر سورة الحشر {لو أنزلنا هذا القرآن}، وآيتان من {قل أوحي} {وأنه تعالى جد ربنا} إلى {شططا}، فهذه هي الآيات المسميات بثلاث وثلاثين آية

আমি আমার পিতাকে বলতে শুনেছি। তিনি বলেছেন, ৩৩ টি আয়াত এমন আছে যা যাদু-টোনা থেকে রক্ষার ক্ষেত্রে উপকারী এবং চোর-ডাকাত ও হিংস্র প্রাণী থেকে আত্মরক্ষার মাধ্যম। আয়াতগুলো এই,


১. সূরা বাকারার প্রথম ৪ আয়াত

২. আয়াতুল কুরসী ও তার পরবর্তী দুই আয়াত মোট ৩ আয়াত

৩. সূরা বাকারার শেষ ৩ আয়াত

৪. সূরা আরাফ এর ৫৪, ৫৫ ও ৫৬ নং আয়াত, মোট ৩ আয়াত

৫. সূরা ইসরা এর ১১০ নং আয়াত

৬. সূরা সাফ্ফাত এর প্রথম ১০ আয়াত

৭. সূর আর রহমান এর ৩৩ ও ৩৪ নং আয়াত

৮. সূরা হাশর এর শেষ ৪ আয়াত

৯. সূরা জিন এর ৩য় ও ৪র্থ নং আয়াত

এই মোট ৩৩ আয়াত। তবে এরপরেই শাহ ওয়ালি উল্লাহ দেহলভী রহ. লিখেছেন,


وكان سيدي الوالد يزيد عليها الفاتحة، وقل أيها الكافرون، وقل هو الله أحد، والمعوذتين، ويأخذ من سورة قل {أوحي} إلى {شططا}.


তবে আমার সম্মানিত পিতা এর যোগ করতেন, সূরা ফাতিহা (৭ আয়াত), সূরা কাফিরুন (৬ আয়াত), সূরা ইখলাস (৪ আয়াত), সূরা ফালাক (৫ আয়াত), সূরা নাস (৬ আয়াত) ও সূরা জ্বিন থেকে ‘শাত্বাত্বা’ পর্যন্ত (অতিরিক্ত ২ আয়াত)। [প্রাগুক্ত]


অর্থাৎ তিনি এই ৩৩ আয়াতের সাথে আরো ৩০ আয়াত যোগ করে ৬৩ আয়াত পড়তেন।


আয়াত সংখ্যাই যাই হোক, এ আমলের ক্ষেত্রে এটি কোন বিবেচ্য বিষয় নয়; কারণ এ আমল বা এর আয়াত সংখ্যা কোন মানসূস আলাইহ (শরীয়তের পক্ষ থেকে নির্ধারিত) বিষয় নয়। তাই এতে কম-বেশ করার সুযোগ রয়েছে। আল্লাহ তায়ালা আমাদের সঠিক বুঝ দান করুন। আমীন।

৩৩ আয়াতের  উপকারিতা জানুন :

        ক)  জ্বিন-পরী      অথবা      বান-টোনায়     আক্রান্ত ব্যক্তিকে    এই      ৩৩    আয়াতের    তাবীজ  লিখে খাওয়ার পানিতে ভিজিয়ে  রেখে  ১৩ দিন  পর্যন্ত পানি    পান   করালে    এবং   গোসল     করার   পর কোমর পর্যন্ত পানিতে   নেমে ১৩ দিন  পর্যন্ত ৩৩ আয়াত ভিজানো পানি   হতে  কিছু  পানি  মাথায়ও সর্বাঙ্গে (কোমরের  উপর   পর্যন্ত) ঢেলে  দিলে আল্লাহ      তায়ালার    রহমতে     উল্লেখিত    বিষয়ে আক্রান্ত লোক  ভাল হবে। ইনশাআল্লাহ।একটি তাবীজে ভাল না হলে উক্ত নিয়মে ২, ৩, ৪, ৫, ৬ অথবা ৭টি তাবীজ ব্যবহার করতে হবে।

        খ) যে ব্যক্তি এই ৩৩ আয়াত ভক্তির সাথে পাঠ করবে, আল্লাহ তায়ালা তার সকল নেক মকসুদ পূর্ণ  করে দিবেন  এবং  সে নিরাপদে কালযাপন করবে।       সে      সব       সময়      আল্লাহ       তায়ালার রহমতের মধ্যে থাকতে পারবে।

        গ)   এই   সমস্ত   আয়াত   কিছুটা   কম   বেশি   রদ  বদলের  সাথে   আল  কাওলুল  জামিল    কিতাবে আল্লামা  শাহ  অলি উল্লাহ    মোহাদ্দিসে দেহলভী রাদিয়াল্লাহু   আনহু  লিখেন-   ‘এই   ৩৩   আয়াত  যাদু    টোনার  আছরকে   ধ্বংস   করে  দেয়   এবং ভূত পেতনী জ্বিন  পরী এবং   চোর ডাকাত আর  হিংস্র  জন্তুর  আক্রমণ  ও  অনিষ্ট  হতে  হেফাজত  করে।’

তেত্রিশ আয়াত নিম্নরূপঃ


بِسْمِ  اللَّهِ  الرَّحْمَٰنِ   الرَّحِيمِ  (1)  الْحَمْدُ لِلَّهِ  رَبِّ الْعَالَمِينَ (2)  الرَّحْمَٰنِ  الرَّحِيمِ  (3)  مَالِكِ  يَوْمِ  الدِّينِ (4)  إِيَّاكَ نَعْبُدُ  وَإِيَّاكَ  نَسْتَعِينُ  (5)    اهْدِنَا  الصِّرَاطَ   الْمُسْتَقِيمَ (6)  صِرَاطَ الَّذِينَ أَنْعَمْتَ عَلَيْهِمْ غَيْرِ  الْمَغْضُوبِ عَلَيْهِمْ وَلَا الضَّالِّينَ (7)


بِسْمِ ٱللّٰهِ ٱلرَّحْمٰنِ ٱلرَّحِيمِ

الم  (1) ذَٰلِكَ الْكِتَابُ لَا   رَيْبَ ۛ  فِيهِ ۛ هُدًى  لِّلْمُتَّقِينَ (2)  الَّذِينَ  يُؤْمِنُونَ   بِالْغَيْبِ   وَيُقِيمُونَ  الصَّلَاةَ  وَمِمَّا  رَزَقْنَاهُمْ يُنفِقُونَ (3) وَالَّذِينَ يُؤْمِنُونَ بِمَا أُنزِلَ إِلَيْكَ وَمَا أُنزِلَ مِن قَبْلِكَ    وَبِالْآخِرَةِ  هُمْ  يُوقِنُونَ (4) أُولَٰئِكَ عَلَىٰ هُدًى مِّن رَّبِّهِمْ ۖ وَأُولَٰئِكَ هُمُ الْمُفْلِحُونَ (5)


وَإِلَهُكُمْ إِلَهٌ وَاحِدٌ لا إِلَهَ إِلا هُوَ الرَّحْمَنُ الرَّحِيمُ০

الْحَيُّ  الْقَيُّومُ    ۚ  لَا     تَأْخُذُهُ  سِنَةٌ  وَلَا  نَوْمٌ  ۚ    لَّهُ    مَا    فِي السَّمَاوَاتِ وَمَا  فِي  الْأَرْضِ ۗ  مَن   ذَا  الَّذِي يَشْفَعُ عِندَهُ  إِلَّا   بِإِذْنِهِ     ۚ    يَعْلَمُ  مَا   بَيْنَ  أَيْدِيهِمْ  وَمَا  خَلْفَهُمْ  ۖ   وَلَا  يُحِيطُونَ   بِشَيْءٍ  مِّنْ   عِلْمِهِ  إِلَّا   بِمَا  شَاءَ  ۚ  وَسِعَ  كُرْسِيُّهُ السَّمَاوَاتِ    وَالْأَرْضَ ۖ وَلَا   يَئُودُهُ حِفْظُهُمَا ۚ وَهُوَ الْعَلِيُّ الْعَظِيمُ (255)  لَا إِكْرَاهَ  فِي   الدِّينِ   ۖ قَد  تَّبَيَّنَ  الرُّشْدُ مِنَ الْغَيِّ ۚ فَمَن  يَكْفُرْ بِالطَّاغُوتِ  وَيُؤْمِن بِاللَّهِ فَقَدِ اسْتَمْسَكَ بِالْعُرْوَةِ   الْوُثْقَىٰ     لَا   انفِصَامَ   لَهَا   ۗ   وَاللَّهُ    سَمِيعٌ   عَلِيمٌ (256)০اللَّهُ وَلِيُّ الَّذِينَ آمَنُوا يُخْرِجُهُم مِّنَ الظُّلُمَاتِ إِلَى النُّورِ   ۖ   وَالَّذِينَ  كَفَرُوا أَوْلِيَاؤُهُمُ  الطَّاغُوتُ يُخْرِجُونَهُم مِّنَ   النُّورِ  إِلَى  الظُّلُمَاتِ  ۗ   أُولَٰئِكَ   أَصْحَابُ  النَّارِ  ۖ  هُمْ فِيهَا خَالِدُونَ


لِّلَّهِ مَا  فِي   السَّمَاوَاتِ وَمَا فِي  الْأَرْضِ  ۗ وَإِن تُبْدُوا  مَا  فِي أَنفُسِكُمْ  أَوْ تُخْفُوهُ يُحَاسِبْكُم بِهِ اللَّهُ  ۖ  فَيَغْفِرُ لِمَن يَشَاءُ وَيُعَذِّبُ مَن  يَشَاءُ ۗ  وَاللَّهُ  عَلَىٰ كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ (284) آمَنَ الرَّسُولُ  بِمَا أُنزِلَ إِلَيْهِ مِن  رَّبِّهِ وَالْمُؤْمِنُونَ  ۚ كُلٌّ   آمَنَ بِاللَّهِ وَمَلَائِكَتِهِ وَكُتُبِهِ  وَرُسُلِهِ   لَا  نُفَرِّقُ   بَيْنَ  أَحَدٍ  مِّن رُّسُلِهِ  ۚ  وَقَالُوا  سَمِعْنَا  وَأَطَعْنَا  ۖ  غُفْرَانَكَ  رَبَّنَا  وَإِلَيْكَ  الْمَصِيرُ (285)   لَا يُكَلِّفُ اللَّهُ نَفْسًا إِلَّا  وُسْعَهَا ۚ  لَهَا   مَا  كَسَبَتْ وَعَلَيْهَا   مَا  اكْتَسَبَتْ ۗ رَبَّنَا  لَا تُؤَاخِذْنَا  إِن نَّسِينَا   أَوْ   أَخْطَأْنَا  ۚ  رَبَّنَا   وَلَا  تَحْمِلْ  عَلَيْنَا  إِصْرًا  كَمَا   حَمَلْتَهُ  عَلَى  الَّذِينَ مِن  قَبْلِنَا ۚ رَبَّنَا  وَلَا  تُحَمِّلْنَا  مَا لَا طَاقَةَ لَنَا  بِهِ ۖ وَاعْفُ   عَنَّا وَاغْفِرْ   لَنَا  وَارْحَمْنَا ۚ أَنتَ مَوْلَانَا فَانصُرْنَا عَلَى الْقَوْمِ الْكَافِرِينَ (286)০


شَهِدَ اللَّهُ أَنَّهُ لَا إِلَٰهَ إِلَّا هُوَ وَالْمَلَائِكَةُ وَأُولُو الْعِلْمِ قَائِمًا بِالْقِسْطِ ۚ لَا إِلَٰهَ إِلَّا هُوَ الْعَزِيزُ الْحَكِيمُ ০


قُلِ   اللَّهُمَّ  مَالِكَ   الْمُلْكِ   تُؤْتِي  الْمُلْكَ   مَن  تَشَاءُ  وَتَنزِعُ  الْمُلْكَ مِمَّن تَشَاءُ  وَتُعِزُّ  مَن تَشَاءُ وَتُذِلُّ مَن تَشَاءُ ۖ بِيَدِكَ الْخَيْرُ  ۖ   إِنَّكَ  عَلَىٰ  كُلِّ  شَيْءٍ  قَدِيرٌ   (26)   تُولِجُ   اللَّيْلَ  فِي النَّهَارِ   وَتُولِجُ   النَّهَارَ   فِي   اللَّيْلِ  ۖ  وَتُخْرِجُ  الْحَيَّ  مِنَ   الْمَيِّتِ وَتُخْرِجُ الْمَيِّتَ مِنَ الْحَيِّ ۖ وَتَرْزُقُ  مَن تَشَاءُ بِغَيْرِ حِسَابٍ


إِنَّ  رَبَّكُمُ اللَّهُ الَّذِي خَلَقَ  السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضَ فِي    سِتَّةِ أَيَّامٍ    ثُمَّ     اسْتَوَىٰ    عَلَى   الْعَرْشِ   يُغْشِي   اللَّيْلَ   النَّهَارَ يَطْلُبُهُ   حَثِيثًا   وَالشَّمْسَ  وَالْقَمَرَ  وَالنُّجُومَ   مُسَخَّرَاتٍ بِأَمْرِهِ  ۗ أَلَا  لَهُ  الْخَلْقُ وَالْأَمْرُ  ۗ تَبَارَكَ   اللَّهُ رَبُّ  الْعَالَمِينَ (54)   ادْعُوا   رَبَّكُمْ   تَضَرُّعًا      وَخُفْيَةً     ۚ    إِنَّهُ   لَا    يُحِبُّ الْمُعْتَدِينَ (55) وَلَا تُفْسِدُوا فِي   الْأَرْضِ بَعْدَ إِصْلَاحِهَا وَادْعُوهُ   خَوْفًا    وَطَمَعًا   ۚ     إِنَّ   رَحْمَتَ   اللَّهِ   قَرِيبٌ    مِّنَ الْمُحْسِنِينَ


قُلِ  ادْعُوا  اللَّهَ  أَوِ   ادْعُوا   الرَّحْمَٰنَ  ۖ  أَيًّا  مَّا  تَدْعُوا  فَلَهُ الْأَسْمَاءُ  الْحُسْنَىٰ  ۚ   وَلَا   تَجْهَرْ  بِصَلَاتِكَ    وَلَا   تُخَافِتْ  بِهَا  وَابْتَغِ  بَيْنَ  ذَٰلِكَ   سَبِيلًا  (110)  وَقُلِ  الْحَمْدُ   لِلَّهِ  الَّذِي  لَمْ يَتَّخِذْ وَلَدًا وَلَمْ يَكُن لَّهُ  شَرِيكٌ فِي  الْمُلْكِ  وَلَمْ يَكُن   لَّهُ وَلِيٌّ مِّنَ الذُّلِّ ۖ وَكَبِّرْهُ تَكْبِيرًا


أَفَحَسِبْتُمْ    أَنَّمَا   خَلَقْنَاكُمْ   عَبَثًا   وَأَنَّكُمْ      إِلَيْنَا   لَا تُرْجَعُونَ  (115) فَتَعَالَى اللَّهُ   الْمَلِكُ الْحَقُّ   ۖ لَا   إِلَٰهَ إِلَّا هُوَ رَبُّ الْعَرْشِ الْكَرِيمِ  (116) وَمَن  يَدْعُ  مَعَ اللَّهِ  إِلَٰهًا آخَرَ لَا  بُرْهَانَ  لَهُ  بِهِ  فَإِنَّمَا  حِسَابُهُ  عِندَ  رَبِّهِ  ۚ   إِنَّهُ  لَا  يُفْلِحُ  الْكَافِرُونَ    (117)   وَقُل   رَّبِّ    اغْفِرْ     وَارْحَمْ   وَأَنتَ   خَيْرُ الرَّاحِمِينَ


بسم الله الرحمن الرحيم

وَالصَّافَّاتِ  صَفًّا (1)  فَالزَّاجِرَاتِ  زَجْرًا (2) فَالتَّالِيَاتِ ذِكْرًا       (3)   إِنَّ    إِلَٰهَكُمْ    لَوَاحِدٌ   (4)    رَّبُّ   السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ  وَمَا    بَيْنَهُمَا  وَرَبُّ  الْمَشَارِقِ   (5)  إِنَّا  زَيَّنَّا السَّمَاءَ الدُّنْيَا   بِزِينَةٍ  الْكَوَاكِبِ  (6)  وَحِفْظًا  مِّن كُلِّ    شَيْطَانٍ  مَّارِدٍ  (7)  لَّا  يَسَّمَّعُونَ  إِلَى     الْمَلَإِ    الْأَعْلَىٰ وَيُقْذَفُونَ  مِن   كُلِّ  جَانِبٍ   (8)  دُحُورًا  ۖ    وَلَهُمْ    عَذَابٌ وَاصِبٌ (9) إِلَّا مَنْ خَطِفَ الْخَطْفَةَ فَأَتْبَعَهُ  شِهَابٌ ثَاقِبٌ (10)   فَاسْتَفْتِهِمْ  أَهُمْ     أَشَدُّ  خَلْقًا   أَم   مَّنْ   خَلَقْنَا  ۚ   إِنَّا خَلَقْنَاهُم مِّن طِينٍ لَّازِبٍ


يَا   مَعْشَرَ   الْجِنِّ  وَالْإِنسِ   إِنِ   اسْتَطَعْتُمْ   أَن  تَنفُذُوا   مِنْ أَقْطَارِ  السَّمَاوَاتِ  وَالْأَرْضِ   فَانفُذُوا  ۚ  لَا   تَنفُذُونَ   إِلَّا بِسُلْطَانٍ (33) فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ (34)  يُرْسَلُ عَلَيْكُمَا  شُوَاظٌ   مِّن  نَّارٍ    وَنُحَاسٌ  فَلَا  تَنتَصِرَانِ  (35) فَبِأَيِّ آلَاءِ  رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ   (36)  فَإِذَا  انشَقَّتِ السَّمَاءُ  فَكَانَتْ وَرْدَةً كَالدِّهَانِ (37) فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ (38)  فَيَوْمَئِذٍ لَّا  يُسْأَلُ عَن ذَنبِهِ إِنسٌ وَلَا جَانٌّ  (39)  فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ


لَوْ    أَنزَلْنَا    هَٰذَا    الْقُرْآنَ      عَلَىٰ    جَبَلٍ    لَّرَأَيْتَهُ    خَاشِعًا  مُّتَصَدِّعًا     مِّنْ   خَشْيَةِ  اللَّهِ  ۚ    وَتِلْكَ   الْأَمْثَالُ  نَضْرِبُهَا لِلنَّاسِ لَعَلَّهُمْ  يَتَفَكَّرُونَ (21) هُوَ  اللَّهُ الَّذِي لَا إِلَٰهَ إِلَّا هُوَ ۖ عَالِمُ الْغَيْبِ وَالشَّهَادَةِ  ۖ هُوَ الرَّحْمَٰنُ الرَّحِيمُ (22) هُوَ اللَّهُ الَّذِي لَا إِلَٰهَ إِلَّا هُوَ  الْمَلِكُ الْقُدُّوسُ السَّلَامُ الْمُؤْمِنُ الْمُهَيْمِنُ   الْعَزِيزُ   الْجَبَّارُ   الْمُتَكَبِّرُ   ۚ   سُبْحَانَ   اللَّهِ   عَمَّا  يُشْرِكُونَ    (23)  هُوَ  اللَّهُ   الْخَالِقُ  الْبَارِئُ    الْمُصَوِّرُ  ۖ   لَهُ الْأَسْمَاءُ الْحُسْنَىٰ  ۚ  يُسَبِّحُ   لَهُ مَا فِي السَّمَاوَاتِ  وَالْأَرْضِ ۖ  وَهُوَ الْعَزِيزُ الْحَكِيمُ


بسم الله الرحمن الرحيم

قُلْ أُوحِيَ  إِلَيَّ أَنَّهُ اسْتَمَعَ  نَفَرٌ مِّنَ   الْجِنِّ فَقَالُوا إِنَّا  سَمِعْنَا قُرْآنًا عَجَبًا  (1) يَهْدِي إِلَى الرُّشْدِ فَآمَنَّا بِهِ ۖ وَلَن نُّشْرِكَ بِرَبِّنَا أَحَدًا (2)   وَأَنَّهُ  تَعَالَىٰ جَدُّ  رَبِّنَا مَا اتَّخَذَ صَاحِبَةً وَلَا وَلَدًا (3) وَأَنَّهُ كَانَ يَقُولُ سَفِيهُنَا عَلَى اللَّهِ شَطَطًا


بسم الله الرحمن الرحيم

قُلْ يَا  أَيُّهَا  الْكَافِرُونَ (1) لَا أَعْبُدُ  مَا تَعْبُدُونَ   (2)  وَلَا أَنتُمْ عَابِدُونَ مَا أَعْبُدُ (3) وَلَا أَنَا عَابِدٌ مَّا عَبَدتُّمْ (4) وَلَا أَنتُمْ  عَابِدُونَ  مَا  أَعْبُدُ  (5) لَكُمْ دِينُكُمْ وَلِيَ دِينِ (6)


بسم الله الرحمن الرحيم

قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ     (1) اللَّهُ   الصَّمَدُ   (2)  لَمْ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ  (3) وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ (4)


بسم الله الرحمن الرحيم

قُلْ  أَعُوذُ بِرَبِّ الْفَلَقِ (1)  مِن   شَرِّ مَا  خَلَقَ (2)   وَمِن  شَرِّ غَاسِقٍ    إِذَا   وَقَبَ  (3)  وَمِن شَرِّ النَّفَّاثَاتِ فِي الْعُقَدِ   (4) وَمِن شَرِّ حَاسِدٍ إِذَا حَسَدَ (5)


بسم الله الرحمن الرحيم

قُلْ أَعُوذُ  بِرَبِّ النَّاسِ (1)  مَلِكِ النَّاسِ  (2) إِلَٰهِ  النَّاسِ (3) مِن  شَرِّ  الْوَسْوَاسِ الْخَنَّاسِ  (4)  الَّذِي يُوَسْوِسُ   فِي  صُدُورِ النَّاسِ (5) مِنَ الْجِنَّةِ وَالنَّاسِ (6)


بسم الله الرحمن الرحيم

قُل لَّن يُصِيبَنَا إِلَّا مَا كَتَبَ  اللَّهُ  لَنَا   هُوَ مَوْلَانَا   ۚ   وَعَلَى اللَّهِ فَلْيَتَوَكَّلِ الْمُؤْمِنُونَ

No comments

Powered by Blogger.