মৃত্যু ব্যক্তির গোসলের পূর্বে তার পাশে কোরআন পড়ার বিধান কি???

 মৃত্যু  ব্যক্তির গোসলের পূর্বে  তার পাশে কোরআন পড়ার বিধান কি???


উত্তরঃ আলাইকুমুস সালাম জী আপনি এটি দেখে নিন।




গোসল দেওয়ার আগে মৃত ব্যক্তির পাশে উচ্চৈঃস্বরে পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত করা মাকরুহ। উত্তম হলো, গোসলের পরে তেলাওয়াত করা। তবে মৃত ব্যক্তির পাশে দোয়া-দরুদ পড়া সর্বাবস্থায়ই জায়েজ। তবে গাইরে মাহরাম নারী-পুরুষ পাশাপাশি বসে কোরআন তেলাওয়াত ও দোয়া-দরুদ পড়া জায়েজ নয়।

মৃত্যুর খবর প্রচার করা এবং অনতিবিলম্বে কাফন-দাফনের ব্যবস্থা করা মুস্তাহাব। (বুখারি, হাদিস : ১১৬৮, আবু দাউদ, হাদিস : ২৮৪৭)

টাকার বিনিময়ে কোরআনখানি করা বৈধ নয়

মৃত ব্যক্তির নামে সওয়াব পৌঁছানোর উদ্দেশ্যে কোরআন পড়িয়ে টাকা দেওয়া-নেওয়া ও খানা খাওয়া নাজায়েজ। আর যেহেতু টাকা বা কোনোরূপ বিনিময় নিয়ে কোরআন তিলাওয়াত করলে স্বয়ং তিলাওয়াতকারীই ওই তিলাওয়াতের কোনো সওয়াব পায় না। তাহলে সে মৃত ব্যক্তির রুহে কী পৌঁছাবে? সুতরাং খতম নিজেদের পড়তে হবে বা এমন লোক দ্বারা পড়াতে হবে, যাদের সঙ্গে আগে থেকে মহব্বত ছিল, যারা বিনিময় ছাড়াই কোরআন পড়ে দেবে। (ফাতাওয়া শামি : ৫/৩৯, ইমদাদুল ফাতাওয়া : ৩/৩৮৫)

আর হুজুর ডেকে এনে কোরআন তেলাওয়াত ও দোয়া-দরুদ পড়াকে আবশ্যক মনে না করলে জায়েজ আছে। পুরুষ মাইয়েতের ক্ষেত্রে মাহরাম নারী ছাড়া অন্য কোনো নারী কর্তৃক কোরআন তেলাওয়াত ও দোয়া-দরুদ পড়া অনুচিত। তবে হ্যাঁ, পড়তে চাইলে অন্য কোনো রুমে বা দূরবর্তী স্থানে বসে পড়বে। এটাই উত্তম। (সুরা নিসা: ১২৩; সুরা আহযাব: ৫৯; সুরা যিলযাল: ০৮; তিরমিজি : হাদিস ২৭৭৮; আবু দাউদ : হাদিস নং ৪১১২; আদ-দুররুল মুখতার মা’রদ্দিল মুহতার: ২/১৯৩; আকিদাতুত-ত্বহাবি: ৯৯; মায়্যেতকে মাসাইলকা ইনসাইক্লোপেডিয়া: ১/২০৮; ফাতাওয়া মাহমুদিয়া: ১৩/৬০১)

কোন মন্তব্য নেই

Be alert before spamming comments.

Blogger দ্বারা পরিচালিত.